সব
 

"বাবু খাইছো?" - কেন এতো জমজমাট

আপডেট : ১১ মার্চ ২০২১, ১৫:২৩

গানটি এতো জনপ্রিয় কিংবা ভাইরাল হওয়ার কারণ একটাই মনে করে বঙ্গবাজ। আর তা হলো চলতি ভাষার টোনের ঝলক!

এই ধরুণনা-ক্ষ্যাপা আইতাছে, মাইরালা, বেবি তুমি কী করো, ছ্যাকা দিবি না, এই যে বেয়াইন সাব, বন্ধু তুই লোকাল বাস, নাগিন ড্যান্স- এমন অসংখ্য শব্দের ব্যবহার আমাদের মতো তরুণরা খুব সহজেই ভাব প্রকাশের জন্য ব্যবহার করে। তরুণরা নিজেদের প্রিয়জনদের কিংবা বন্ধুদের মাঝে নানাভাবে কিছু চটকদার শব্দ প্রচলন করে। আর এসব শব্দ মুখে মুখে প্রচলিত হতে হতে একসময়ে হয় ভাইরাল। আর সেসব শব্দই মিউজিকে ব্যবহার কররে আলাদা আলোড়ন তৈরি করে। যদিও মূলধারার সঙ্গীতের সাথে এসব মিউজিকে কোনোই মিল নাই।

আর বর্তমানে টেকনোলজি আমাদের এমনভাবে আকৃষ্ট করেছে যা এসব গান দ্রুত ছড়িয়ে দেয় আর রাতারাতি ভাইরাল হয়। সেই সাথে আমাদের কাপলদের মধ্যে এসব শব্দ বা কথা খুব জনপ্রিয়তা পায় সহজেই।

ঠিক তেমনভাবেই প্রিমিয়ার করার পরপরই গানটি লুফে নেন বাংলাদেশের তরুণ তরুণীরা। মাত্র ১১ দিনেই ভিডিওটি ইউটিউবে দেখা হয়েছে প্রায় ২৮ লাখের বেশি। এরপর নানা অনুষ্ঠানে কিংবা ডিজে পার্টিতে যা বেশ জোরেশোরেই উপলব্ধি। আর এসব শব্দযুগল ব্যবহারেই একটি গান ভাইরাল হওয়ার পেছেনে রয়েছে তারুণ্যত্বের ছাপ। যারা এ ধরনের মিউজিক বেশি পছন্দ করে। যদিও আসল গানের মতো যার গভীরতা খুঁজে পাওয়া যায়না এসব গানে। ডিজে ঘরানার মিউজিক প্রেমীদের এসব গান বেশি টানে। আর এসব শব্দ টিনএজরা কিংবা প্রেমিক প্রেমিকারাই বেশি ব্যবহার করে তাদের মধ্যে খোঁজ কিংবা আলাপনের একটা নতুন ধরন হিসেবে। আর এসব নিয়েই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশি বেশি ট্রলও হয়।

গানটি এতো জনপ্রিয় কিংবা ভাইরাল হওয়ার কারণ একটাই মনে করে বঙ্গবাজ। আর তা হলো চলতি ভাষার টোনের ঝলক! এই ধরুণনা-ক্ষ্যাপা আইতাছে, মাইরালা, বেবি তুমি কী করো, ছ্যাকা দিবি না, এই যে বেয়াইন সাব, বন্ধু তুই লোকাল বাস, নাগিন ড্যান্স- এমন অসংখ্য শব্দের ব্যবহার আমাদের মতো তরুণরা খুব সহজেই ভাব প্রকাশের জন্য ব্যবহার করে। তরুণরা নিজেদের প্রিয়জনদের কিংবা বন্ধুদের মাঝে নানাভাবে কিছু চটকদার শব্দ প্রচলন করে। আর এসব শব্দ মুখে মুখে প্রচলিত হতে হতে একসময়ে হয় ভাইরাল। আর সেসব শব্দই মিউজিকে ব্যবহার কররে আলাদা আলোড়ন তৈরি করে। যদিও মূলধারার সঙ্গীতের সাথে এসব মিউজিকে কোনোই মিল নাই। আর বর্তমানে টেকনোলজি আমাদের এমনভাবে আকৃষ্ট করেছে যা এসব গান দ্রুত ছড়িয়ে দেয় আর রাতারাতি ভাইরাল হয়। সেই সাথে আমাদের কাপলদের মধ্যে এসব শব্দ বা কথা খুব জনপ্রিয়তা পায় সহজেই। ঠিক তেমনভাবেই প্রিমিয়ার করার পরপরই গানটি লুফে নেন বাংলাদেশের তরুণ তরুণীরা। মাত্র ১১ দিনেই ভিডিওটি ইউটিউবে দেখা হয়েছে প্রায় ২৮ লাখের বেশি। এরপর নানা অনুষ্ঠানে কিংবা ডিজে পার্টিতে যা বেশ জোরেশোরেই উপলব্ধি। আর এসব শব্দযুগল ব্যবহারেই একটি গান ভাইরাল হওয়ার পেছেনে রয়েছে তারুণ্যত্বের ছাপ। যারা এ ধরনের মিউজিক বেশি পছন্দ করে। যদিও আসল গানের মতো যার গভীরতা খুঁজে পাওয়া যায়না এসব গানে। ডিজে ঘরানার মিউজিক প্রেমীদের এসব গান বেশি টানে। আর এসব শব্দ টিনএজরা কিংবা প্রেমিক প্রেমিকারাই বেশি ব্যবহার করে তাদের মধ্যে খোঁজ কিংবা আলাপনের একটা নতুন ধরন হিসেবে। আর এসব নিয়েই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশি বেশি ট্রলও হয়।
আরও BUZZ

নতুন জেমস বন্ড

চিনির স্ক্রাবে ত্বক পরিচর্যা

 সাজসজ্জায় ঠিক নয় যা

দাম বাড়ালো মাইক্রোসফট 

 আফগান ফুটবলারদের উদ্ধারে এগিয়ে ফিফা